কুমারগঞ্জে গত বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকদের চেক বিলি চলছে

দীপঙ্কর মিত্র (টী.এন.আই বালুরঘাট) । টি.এন.আই সম্পাদনা শিলিগুড়ি

বাংলাডেস্ক, টী.এন.আই কুমারগঞ্জ ৬ই মার্চ ২০১৮: বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকদের চেক বিলি শুরু হল কুমারগঞ্জ ব্লকে। রাজ্য সরকারের এই উদ্যোগে খুশি কৃষকরা। প্রথম দিনেই এই ব্লকের দেড় হাজার কৃষক সরকারী সহয়তার আওতায় এসেছেন। জানা গেছে, গত আগস্ট মাসে ভয়াবহ বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ হয় দক্ষিণ দিনাজপুরের বিস্তীর্ণ অঞ্চল। প্রায় সব ব্লকেই কম বেশি জল ঢুকে পরে। ক্ষতি হয় কয়েক হেক্টর জমিতে লাগানো আমন ধান। ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকদের সহয়তায় রাজ্য সরকার ক্ষতিপূরন ঘোষণা করে। শতক প্রতি ৫৪ টাকা করে ধার্য হয়। মাস কয়েক আগে আবেদন গ্রহন শুরু হয়। ব্লক ভিত্তিক কৃষকদের চেক বিলি করার প্রক্রিয়া চলছে। অবশেষে মঙ্গলবার থেকে কুমারগঞ্জ ব্লকের ৮ টি গ্রাম পঞ্চায়েতে চেক দেওয়া শুরু হল। বড়াহারে অবস্থিত কুমারগঞ্জ কিশানমান্ডিতে একটি শিবির করা হয়েছে চেক বিলির জন্য। আগামী  ২০ মার্চ পর্যন্ত চলবে চেক প্রির। মঙ্গলবার প্রথম দিনে ১নং সাফানগর গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রায় দেড় হাজার আবেদনকারিকে ক্ষতিপূরণের চেক দেওয়া হয়েছে। কুমারগঞ্জ ব্লকের কৃষি উন্নয়ন আধিকারীকের দফতর সূএে জানা গেছে, কুমারগঞ্জ ব্লকের ২১৮টি মৌজার মধ্যে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতিগ্রস্থ ১৮৬টি মৌজার প্রায় ১৩৫০০ কৃষকের হাতে ক্ষতিপুরনের চেক তুলে দেওয়ার কর্মসূচী শুরু হয়েছে। প্রথমদিন প্রায় ১৫৪৫ জন কৃষকের হাতে চেক তুলে দেওয়া হয়েছে বলে জানাগেছে। পাশাপাশি মোট ক্ষতির পরিমান প্রায় ৮ কোটি বলে জানাগেছে। এদিনের চেক প্রদান কর্মসূচীতে উপস্থিত ছিলেন কুমারগঞ্জ ব্লকের বিডিও শ্রী দেবদও চক্রবর্তী, কুমারগঞ্জ বিধানসভার বিধায়ক তোরাফ হোসেন মন্ডল, কুমারগঞ্জ পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি শ্রীমতী উমা রায়, কৃষি উন্নয়ন আধিকারীক মহম্মদ আনারুল ইসলাম, বিশিষ্ট সমাজ সেবক মফিজুদ্দিন মিঞা সহ বিশিষ্ট জনেরা। এবিষয়ে মফেজ বাবু জানান, মোট ৮ কোটি টাকার ক্ষতিপূরন চেক প্রদান হচ্ছে রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে। প্রতিদিন সকাল ১০ টা ৩০ মিনিট থেকে বিকেল ৪ টা ৩০ মিনিট অবধি চেক প্রদান চলছে। যারা নির্ধারিত দিনে আসতে পারেননি তাদের জন্য বিশেষ দিন দেওয়া হয়েছে।

ছবিঃ দীপঙ্কর মিত্র(টী.এন.আই)

Facebook Comments
Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!