এপ্রিলেই ‘আমি আসবো ফিরে’ র মাধ্যমে বাংলা সিনেমায় আসছে শিলিগুড়ির অম্লানের গান

অভিজিৎ দাস (টী.এন.আই শিলিগুড়ি) । টি.এন.আই সম্পাদনা শিলিগুড়ি

বাংলাডেস্ক, টী.এন.আই শিলিগুড়ি ১৩ই ফেব্রুয়ারি ২০১৮: উত্তরবঙ্গের সঙ্গীত জগতের জন্যে একটি সুখবর। আসছে অঞ্জন দত্তর ‘আমি আসবো ফিরে’। আগামী ২৭শে এপ্রিল ২০১৮ এই সিনেমা মুক্তি পেতে চলেছে। সঙ্গীত পরিচালনায় রয়েছে নীল দত্ত এবং গান লেখা স্বয়ং অঞ্জন দত্ত। সিনেমায় থাকছে অঞ্জন দত্ত, সস্তিকা, অনিন্দ্য, দর্শনা বনিক এবং আরও অনেকে। তবে উত্তরবঙ্গের সঙ্গীত প্রেমীদের কাছে হয়ত এইটুকুতে এই সিনেমার ব্যাপারে উৎসাহিত হবার কারন থাকলেও বাড়তি উন্মাদনা হবে যখন তারা জানবেন যে উত্তরবঙ্গের একদা ব্যান্ডের লিড গিটারিস্ট এবং গায়ক, শিল্পী অম্লান চক্রবর্তী এই সিনেমার মাধ্যমে টলিউডের বাংলা সিনেমায় প্লেব্যাক সিংগার হিসেবে আত্নপ্রকাশ করতে চলেছে। অঞ্জন দত্তর ‘আবার আসবো ফিরে’ ছবিতে অম্লান গেয়েছেন একটি ট্র্যাক ‘যায় ফুরিয়ে যায় কত নেশা’ যা সিনেমার ট্রেলারের প্রথম ট্র্যাক হিসেবেই রাখা হয়েছে। উত্তরবঙ্গের সঙ্গীত প্রেমীদের মধ্যে (বিশেষত ব্যান্ড সঙ্গীত প্রেমীদের মধ্যে) অম্লান এক পরিচিত নাম। পেশায় একজন বিজনেস ম্যানেজমেন্ট প্রেফেশানাল হলেও নেশায় তাঁর ছিল সঙ্গীত। শিলিগুড়ির রবীন্দ্র নগরের বাসিন্দা সর্বদা সঙ্গীত নিয়েই মন তৈরি করে ফেলেছিলেন শুরু থেকেই। মেইনস্ট্রিম সঙ্গীত জগতে পদার্পণ শিলিগুড়ির ‘গ্রিনক্স’ বলে একটা বাংলা ব্যান্ডের মাধ্যমে। তারপর অ্যাড কমার্শিয়ালস, লাগাতার স্টেজ পারফরম্যান্স, অনেক মিউজিক ভিডিও ইত্যাদি দিয়ে চলছিল অম্লানের সঙ্গীত ভ্রমণ। কিন্তু শেষে ঠিক করে ফেললেন বাংলার সঙ্গীতের পীঠস্থান কলকাতায় পাড়ি দেবেন। যথা ভাবনা তথা কর্ম। সেই থেকে শুরু তাঁর সঙ্গীত স্ট্রাগলিং জীবন। এবং তাতে অম্লানের গর্বের জায়গাই অনেক। স্ট্রাগলিং ছাড়া যে জিবনে প্রতিষ্ঠিত হওয়া যায় না বা প্রতিষ্ঠা স্থায়ী হয়না, সেই ব্যাপারে অম্লান দৃঢ় নিশ্চিত ছিলেন। তবে শুধু যে বাংলার বাঙালীদের সঙ্গীত দিয়ে মন ভরিয়ে তোলাই অম্লানের লক্ষ্য ছিল তা নয়। বার বার পাড়ি দিয়েছেন পাশের রাষ্ট্র বাংলাদেশেও এবং যথারীতি চলেও এসেছে সাফল্য। এই মুহূর্তেও অম্লানের কম্পোজ করা এবং সঙ্গীত পরিচালনায় বাংলাদেশের টপ চার্ট র‍্যাঙ্কিং এ অম্লানের প্রচুর গান রয়েছে। ইউটিউবে সেই সব গানের ভিউজ কত আর জানতে চাইবেন না। সবই মিলিয়ন ভিউজ ছাড়িয়ে গেছে। সমকালীন উত্তরবঙ্গের যে কোন সঙ্গীত শিল্পির কাছে তা অতি ঈর্ষণীয় বিষয়। তবে অম্লানের ক্ষেত্রে কাঙ্ক্ষিত বিগ ব্রেক ঘটে গত বছরে যখন এস.ভি.এফ এর অর্থাৎ শ্রী ভেঙ্কটেশ ফিল্মস এর ব্যানারে অম্লান সুযোগ পায় কিছু ওয়েব সিরিজে সঙ্গীত পরিচালনার জন্যে। অম্লান সুযোগের সদ্ব্যবহার করে ফেললেন অতি দ্রুত। ২০১৭র ঠিক পূজার আগে ওয়েব প্ল্যাটফর্মে রিলিজ হয় সস্তিকা অভিনিত, অম্লানের সঙ্গীত পরিচালনায় “ও বৌদি এঞ্জেল ফুরফুরি” গান। সেই গানের এখনো ওয়েব র‍্যাঙ্কিং এ ক্রমাগত হিটস বেরেই চলেছে ইতিমধ্যে সব রকম ভার্সন মিলিয়ে ৫ মিলিয়নের বেশি দেখে ফেলেছে লোকে  সারা বিশ্ব জুড়ে। বর্তমানে হইচই এর ওয়েব সিরিজের ‘সিক্স’ এও সঙ্গীত পরিচালনা করেছেন উত্তরবঙ্গের অম্লান চক্রবর্তী। এবং কালার্স বাংলায় আগামী ধারাবাহিক ‘প্রথম প্রতিশ্রুতি’ র সঙ্গীত পরিচালনা করেছে অম্লান। ‘প্রথম প্রতিশ্রুতি’ ধারাবাহিকের প্রমো এখন বিভিন্ন টিভি চ্যানেল, এফ.এম রেডিও তে ক্রমাগত বেজে চলেছে। সব মিলিয়ে বাংলা মেনস্ট্রিম সঙ্গীত জগতে অম্লান চক্রবর্তীর নাম এখন ট্রেন্ডিং। এবার প্রশ্ন হল সব কিছুর মাঝে কি উত্তরবঙ্গটা ভুলে গেল অম্লান। উত্তরটা সরাসরি ‘না’। শিলিগুড়ির অলি গলিতে সব সময় না হলেও মাঝে মধ্যেই দেখা যায় অম্লানকে। বন্ধুদের সাথে আড্ডা, বা সিসিডিতে কফির চুমুক, বা উত্তরায়ণের শপিং মলে কেনা কাটা ইত্যাদি সবই করেন অম্লান নিজেই তবে অতি চুপি চুপি। মিডিয়ার নজরের বাইরে। তবে শেষে বলা যায় উত্তরবঙ্গের সঙ্গীত শিল্পীদের কাছে অম্লান এক অনুপ্রেরণা। আসা করা যায় ‘আমি আসবো ফিরে’ সেনেমায় গান দিয়েই যখন শুরু হচ্ছে অম্লানের সঙ্গীতে মানুষের মন জয় করা, তখন উত্তরবঙ্গের অনেক শিল্পিকে হয়ত ভবিষ্যতে দেখা যাবে ভবিষ্যতের তারা হবার লক্ষে।

Facebook Comments
Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!