সমস্ত কেন্দ্রে পুনর্গণনার দাবী বিরোধীদের, তীব্র ক্ষোভে ফুঁসছে চোপড়া

দীপঙ্কর দে (টী.এন.আই ইসলামপুর) । টি.এন.আই সম্পাদনা শিলিগুড়ি

বাংলাডেস্ক, টী.এন.আই, চোপড়া, ২০শে মে, ২০১৮: পঞ্চায়েত ভোটের ভোট গননাকেন্দ্রে ঢুকতে না দেওয়ায় ক্ষোভে ফুঁসছে বিরোধীরা। পাশাপাশি এতো রিগিং সন্ত্রাস করা সত্ত্বেও বহু কেন্দ্রে শাসকদলের প্রার্থীরা হালে পানি পায়নি। ভোটে জয়ী হয়েও কাউন্টিং এজেন্টের অনুপস্থিতিতে জোর করে সন্ত্রাস করে হারিয়ে দেওয়া হয়েছে বিরোধী দলের প্রার্থীদের। চোপড়ার গননাকেন্দ্রে হাজির ভোটকর্মীদের অন্তত এমনটাই বক্তব্য।আর তাই চোপড়া ব্লকের সব ভোটকেন্দ্রে পুনর্গণনার দাবীতে সরব হয়েছে বিরোধীরা। দাবী মানা না হলে চোপড়া ব্লককে স্তব্ধ করে দেওয়ার হুমকি বিরোধীদের। জানা গিয়েছে, রাজ্য নির্বাচন কমিশনের নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থার প্রতিশ্রুতি সত্ত্বেও গত বৃহস্পতিবার চোপড়ার কমলাপাল স্মৃতি মহাবিদ্যালয়ের ভোট গননাকেন্দ্রে বিরোধীদলের কাউন্টিং এজেন্টদের ঢুকতেই দেওয়া হয়নি। মহাবিদ্যালয়ের সামনে কাউন্টিং এজেন্ট ভর্তি বাসকে লক্ষ্য করে শাসকদলের সশস্ত্র বাহিনী গুলি বোমা চালিয়ে তাঁদের সেখান থেকে তাড়িয়ে দেয় বলে অভিযোগ। এরপরই ক্ষুব্ধ বিরোধীরা জেলা প্রশাসনের কাছে সব কেন্দ্রে পুনর্গণনার দাবীতে অভিযোগ জানিয়েছেন। গননাকেন্দ্রে হাজির ভোটকর্মীদের অভিজ্ঞতার কথা শুনলে শিউরে উঠতে হয়। তাঁরা জানিয়েছেন, গণনা শুরুর সাথেই হুমকি ভেসে আসে “বাড়িতে গিয়ে স্ত্রীর সিঁথিতে সিঁদুর দেখতে চাইলে তৃণমূলের প্রার্থীদের জেতান” সিপিএম কংগ্রেস বিজেপি দলের জয়ী প্রার্থীদের ব্যালটে অতিরিক্ত কালি লাগিয়ে বাতিল করে দেওয়া হয়েছে। আরও কি কি সন্ত্রাস তা বলে বোঝানো যাবে না। এতো অন্যায় ভগবানও ক্ষমা করবেন না। বিজেপি নেতা শাহিন আখতার ও ব্লক কংগ্রেস সভাপতি অশোক রায় বলেন, এতো রিগিং সন্ত্রাস সত্ত্বেও আমাদের প্রার্থীদের জয় শাসকদল মেনে নিতে না পেরে আমাদের গননাকেন্দ্রে ঢুকতে দেয়নি। আমাদের প্রার্থীদের চোখের জল আমরা মেনে নিতে পারিনি। তাই চোপড়া ব্লকের সব কেন্দ্রে আমরা জেলা প্রশাসনের কাছে পুনর্গণনার দাবী জানিয়েছি। দাবী না মানা হলে চোপড়া ব্লককে স্তব্ধ করে দেওয়া হবে। উত্তর দিনাজপুরের জেলাশাসক আয়েশা রানী বলেন, আমি পুনর্গণনার বিষয়ে লিখিত কোনও অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে কমিশনকে জানিয়ে যথাযথ ব্যবস্থা নেব।

Facebook Comments
Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!