ডালখোলায় মালবাহী ট্রেনে আগুনের ঘটনায় চাঞ্চল্য, অবরুদ্ধ জাতীয় সড়ক

দীপঙ্কর দে (টী.এন.আই ইসলামপুর) । টি.এন.আই সম্পাদনা শিলিগুড়ি

বাংলাডেস্ক, টী.এন.আই মেখলীগঞ্জ ১৮ই এপ্রিল, ২০১৮: উত্তর দিনাজপুরের ডালখোলা রেল ষ্টেশনে বুধবার দুপুরে এক মালবাহী ট্রেনের বগিতে আচমকা আগুন লাগার ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে। ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়কের পাশাপাশি অবরুদ্ধ হয়ে পড়ে রেল যোগাযোগ ব্যবস্থা। প্রায় চার ঘণ্টা পর পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়। জানা গিয়েছে, রাজস্থানের কোটা শহর থেকে গুয়াহাটিগামী একটি মালবাহী ট্রেনটিতে আচমকা আগুন দেখতে পেয়ে চালক ডালখোলা ষ্টেশনে গাড়ি দাঁড় করিয়ে দেয়। খবর পেয়ে ডালখোলা দমকলের একটি ইঞ্জিন এসে আগুন নেভাতে শুরু করে। এরই মধ্যে আগুন একটি বগি থেকে পরের বগিতে ছড়িয়ে পড়তে শুরু করে। রেলকর্মীরা ইঞ্জিন সহ বেশ কয়েকটি বগিকে আগুন লাগা বগি দুটিকে থেকে আলাদা করে দেয়। কিছুক্ষন পর জল শেষ হয়ে আসাতে রায়গঞ্জ ও বিহারের কিষানগঞ্জ দমকলে খবর দেওয়া হয়।

রায়গঞ্জ ও কিষানগঞ্জ থেকে দমকলের দুটি ইঞ্জিন এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। এদিকে মালগাড়িতে আগুন লাগার কারণে ডালখোলা এলাকার ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়ক অবরুদ্ধ হয়ে পড়ে। রাজধানী সহ বিভিন্ন প্যাসেঞ্জার ট্রেনগুলিকে ডালখোলা ঢোকার আগের ষ্টেশন গুলিতেই আটকে দেওয়া হয়। রেল সূত্রে জানা গিয়েছে, অগ্নিসংযোগ হওয়া বগিটিতে ছোলা ও সাদা পাউডার বিশিষ্ট দুই ধরনের সামগ্রী বোঝাই করা ছিল। পরের বগিটিতে সোয়াবিন তেল বোঝাই ছিল। যদিও দমকল কর্মীদের চেষ্টায় সোয়াবিন বোঝাই বগিটি পুরো আগুনের দখলে যাবার আগেই আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা হয়েছে। তা না হলে বড়সড় অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটতে পারতো। তবে মালগাড়িতে ঠিক কি কারনে অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটলো তা কেউই স্পষ্ট করে কিছু জানাতে পারেনি। রেল কর্তৃপক্ষ ঘটনার তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে। উত্তরবঙ্গ রেলের মুখ্য জনসংযোগ আধিকারিক শ্রী প্রণব জ্যোতি শর্মা বলেন, “আচমকা মালগাড়ির একটি বগিতে আগুন লেগেছিল। ঘটনায় কোনও হতাহতের খবর নেই। বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক ও আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা হয়েছে। তবে ঠিক কি কারনে আগুন লেগেছিল সেজন্য ঘটনার তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে”।

ছবিঃ দীপঙ্কর দে (টি.এন.আই)

Facebook Comments
Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!