সারা রাজ্যের মত পঞ্চায়েতের মনোনয়ন ঘিরে রণক্ষেত্র চোপড়া

দীপঙ্কর দে (টী.এন.আই ইসলামপুর) । টি.এন.আই সম্পাদনা শিলিগুড়ি

বাংলাডেস্ক, টী.এন.আই চোপড়া ৫ই এপ্রিল, ২০১৮: মনোনয়নপত্র তোলাকে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত হয়ে উঠলো উত্তর দিনাজপুরের চোপড়া। চোপড়া ব্লক অফিস চত্বরে দফায় দফায় সংঘর্ষর ঘটনা। কখোনো কংগ্রেস তৃণমুল কংগ্রেস তো কখোনো বিজেপি তৃণমুল কংগ্রেস সংঘর্ষ ঘটে। গুলি, বোমা, পথ অবোরোধ, পুলিশের লাঠি চার্জ, কাঁদানে গ্যাসের সেল ফাটানো সব কিছু মিলিয়ে দিনভর উতপ্ত চোপড়া। বিরোধীদের অভিযোগ, শাসকদল তৃনমূল কংগ্রেস মনোনয়নপত্র তুলতে দিচ্ছেনা। বিডিও অফিসের বাইরেই তাদের মারধর করে তাড়িয়ে দিচ্ছে। আবার কখনও শাসকদলের লোক বিডিও অফিসের ভেতরে ঢুকে মনোনয়ন দাখিল করা প্রার্থীদের মারধোড় হুমকি দিচ্ছে বলে অভিযোগ। ঘটনাস্থলে চোপড়া থানার পুলিশ পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে টিয়ার গ্যাস থেকে লাঠি চার্জ করে। ঘটনায় পুলিশ দুই জনকে গ্রেপ্তার করেছে। পাশাপাশি এদিনের ঘটনায় জখম পাঁচ, এদের মধ্যে দুজন গুলির জখমে ইসলামপুর মহকুমা হাসপাতালে ভর্তি। এছাড়াও বিজেপির মনোনয়ন দাখিল করতে আসা তিন প্রার্থীকে তৃনমুল অপহরণ করেছে বলে বিজেপির অভিযোগ। তৃণমুলের পক্ষে যদিও এই অভিযোগ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন বলে দাবী করা হয়েছে।

মনোনয়নপত্র তোলা ও জমা দেওয়া নিয়ে উত্তর দিনাজপুর জেলার প্রতিটি ব্লকেই বিরোধীদের মনোনয়নপত্র তুলতে না দেওয়ার পাশাপাশি প্রার্থী ও কর্মীদের মারধর করার অভিযোগ উঠেছে রাজ্যের শাসকদল তৃনমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে। গতকাল রায়গঞ্জে বোমা গুলি নিয়ে দুস্কৃতীদের তান্ডবের ঘটনায় তৃনমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলেছিল বিরোধীরা। আজ জেলার চোপড়া ব্লকে মনোনয়নপত্র তুলতে গিয়ে শাসকদলের হাতে আক্রান্ত হওয়ার অভিযোগ তোলে কংগ্রেস ও বিজেপি। ঘটনার প্রতিবাদে বিজেপি ৩১নং জাতীয় সড়ক অবরোধ করে। ঘটনাস্থলে পুলিশ এসে অবরোধ মুক্ত করে। যদিও তাদের বিরুদ্ধে ওঠা সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেছে স্থানীয় তৃনমূল নেতৃত্ব। এনিয়ে চোপড়া ব্লকে উত্তেজনা ছড়ায়। ঘটনাস্থলে নামানো হয় বিশাল পুলিশবাহিনী ও র‍্যাফ। চোপড়ার বিজেপি নেতা শাহিন আখতার বলেন, মনোনয়ন পত্র তোলা ও জমার দিন শুরু হতেই শাসকদল তৃনমুলের গুন্ডাবাহিনী অতিসক্রিয় হয়ে উঠেছে। বিডিও অফিসের ভেতরে বাইরে আমাদের প্রার্থী কর্মীদের মারধোর হুমকি দেওয়া হচ্ছে। আজকে আমাদের কর্মী ও প্রার্থীদের লক্ষ্য করে গুলি বোমা চালিয়েছে তৃনমুলের গুন্ডাবাহিনী। গুলিতে জখম আমাদের কর্মীরা ইসলামপুরে হাসপাতালে ভর্তি। তিনজন প্রার্থীকে তৃনমুলের গুন্ডাবাহিনী অপহরন করে নিয়ে গিয়েছে। আমাদের প্রার্থীদের ফেরত না পেলে পরিস্থিতি ভয়ঙ্কর হবে। মহিলা কংগ্রেস প্রার্থী জয়নাফ খাতুন বলেন, আমি আজকে মনোনয়ন পত্র দাখিল করতে বিডিও অফিসে ঢুকলে অফিসের ভেতরের তৃনমুলের গুন্ডারা আমাকে মেরে আমার মনোনয়ন পত্র ছিড়ে অফিস থেকে তাড়িয়ে দিয়েছে। চোপড়া পঞ্চায়েত সমিতির প্রাক্তন সহকারী সভাপতি তৃনমুলের জাকির আবেদিন বলেন, আমাদের বিরুদ্ধে সমস্ত অভিযোগ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন। আমাদের দলকে বদনাম করতেই বিজেপি ও কংগ্রেসের এই সব চক্রান্ত। ওরা নির্বাচনে হেরে যাবার ভয়ে আগে থেকেই এসব অপবাদ দিতে শুরু করেছে।

ছবিঃ দীপঙ্কর দে (টি.এন.আই)

Facebook Comments
Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!