প্রচন্ড শীতে ইসলামপুরে পান চাষে দুই কোটি টাকারও বেশি ক্ষতি

দীপঙ্কর দে (টী.এন.আই ইসলামপুর) । টি.এন.আই সম্পাদনা শিলিগুড়ি

বাংলাডেস্ক, টী.এন.আই ইসলামপুর ২৪শে জানুয়ারি ২০১৮: প্রচন্ড শীতের প্রকোপে ক্ষতিগ্রস্থ কয়েক হাজার পান বাগান। পাশাপাশি ইসলামপুরের শ্রীকৃষ্ণপুর এলাকায় দুই শতাধিক পানচাষীদের পান বাগান পুরোপুরিভাবে নষ্ট হয়ে গেছে। অধিকাংশ পানচাষী ব্যাঙ্ক থেকে ঋন নিয়ে এই পান চাষ করায় ঋন পরিশোধের চিন্তায় তাদের মাথায় এখন আকাশ ভেঙে পরার মতো অবস্থা। সরকারি কোনো সাহায্য না পেলে আত্মহত্যার পথ বেছে নিতেই বাধ্য হবেন পানচাষীরা। পান চাষীরা জানিয়েছেন, সারা বছর পান বাগানে খরচা করার পর পৌষ মাস থেকে চৈত্র মাস পর্যন্ত চাষীরা পানবাগান থেকে পান পাতা তুলে বাজারে বিক্রি করেন। এই সময় নতুন পান পাতা না হওয়ায় পানের চাহিদাও বেশি থাকে। পরপর কয়েক বছর ধরে প্রাকৃতিক দুর্যোগ ও তিস্তার জল বাগানে ঢুকে কম বেশি বিভিন্ন কারনে পান চাষ ক্ষতি হলেও চলতি বছরে প্রচন্ড ঠান্ডার কারনে পানচাষ ব্যাপক হারে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে।ইসলামপুরের শ্রীকৃষ্ণপুর এলাকায় প্রায় দুই শতাধিক পান চাষী পানচাষের সাথে যুক্ত। প্রায় ৩৫ থেকে ৪০ হাজার পানবাগান রয়েছে। এক বিঘার পান বাগানে স্ট্রাকচার তৈরি করতে ৪০/৫০ হাজার টাকা খরচ হয়। খড়ের ছাউনি দিতে বিঘা প্রতি ৮/১০ হাজার টাকা খরচ হয়। বর্ষাকালে মাটি ভরা গোবর সার খৈল কীটনাশক স্প্রে সব মিলিয়ে বিঘা প্রতি আড়াই লক্ষ টাকা খরচ হয়। বাগান তৈরি করতে ২/৩ বছর সময় লাগে। এবছর ঠান্ডার কারনে শ্রীকৃষ্ণপুরে প্রায় দুই থেকে আড়াই কোটি টাকা ক্ষতি হয়েছে। চাষীরা সম্পুর্ন এই পানচাষের উপর নির্ভরশীল।তারা বংশ পরম্পরায় এই পানচাষ করে আসছে। কিন্তুু কয়েক বছর ধরে পানচাষে বারবার আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হওয়ায় এবং সরকারি কোনো সাহায্য না পাওয়ায় পানচাষী পরিবারের ছেলেরা পান চাষে আগ্রহী না হয়ে অন্যত্র মজদূরীর কাজে ভিনরাজ্যে পাড়ি দিচ্ছে। এই ভাবে চলতে থাকলে ইসলামপুরের স্বনামধন্য পানচাষ বিলুপ্ত হয়ে যাবে বলে মত ওয়াকিবহাল মহলের। শ্রীকৃষ্ণপুরের পানচাষী শ্রী পঙ্কজ দে, শ্রী সুবীর দাস’রা বলেন, ‘এই সময় পানচাষে লাভের মুখ দেখার সময় কিন্তু প্রচন্ড ঠান্ডার কারনে সমস্ত পানবাগান শেষ হয়ে গিয়েছে। আমাদের অনেকে ব্যাঙ্ক থেকে ঋন নিয়ে পান চাষ করেছে। সরকার সহযোগিতা না করলে আমাদের আত্মহত্যা ছাড়া আর কোনও রাস্তা নেই।’ ইসলামপুর মহকুমা হর্টিকালচার আধিকারিক সোনালি দে বলেন, ‘এবছর শীতের কারনে ইসলামপুরে ১৫০ একর জমির পানচাষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তাতে প্রায় দুই কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে। আমি জেলাতে রিপোর্ট পাঠিয়ে দিয়েছি।’

ছবিঃ দীপঙ্কর দে (টী.এন.আই)

Facebook Comments
Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!