মেখলীগঞ্জ দখলের লড়াইয়ে শাসক বিরোধী এখন ভোটাস্ত্রে শান দিচ্ছে

স্বপন রায় বীর (টী.এন.আই মেখলীগঞ্জ) । টি.এন.আই সম্পাদনা শিলিগুড়ি

বাংলাডেস্ক, টী.এন.আই মেখলীগঞ্জ ২৫শে এপ্রিল, ২০১৮: দিন গুনছে মেখলীগঞ্জ ভোটের নতুন নিঘণ্ট জানবার জন্যে। আসলে এগিয়ে আসছে ভোট। প্রতিদিন তাই পারদ চড়ছে আবহাওয়া থেকে দ্রুত গতিতে। এক সময়ে বামফ্রন্ট জমানায় লাল ব্রিগেডের শক্ত ঘাটি হিসেবে পরিচিত ছিল মেখলীগঞ্জ। এখন যুগ পালটেছে লাল হয়েছে সবুজ। তবে এবার চিত্র নাকি ভিন্ন অন্তত রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে এমনটাই কিছু উঠে আসছে। লড়াই এবার সেয়ানে সেয়ানে। আবার শাসক দলের মতে তেমন কিছু নয়। তবে বলাই বাহুল্য দিনে দিন যত এগোচ্ছে। প্রতিটি রাজনৈতিক প্রচার যেন আরও থেকে আরও তীব্র হচ্ছে। প্রায় রাজনৈতিক দলের মৌন মিছিল থেকে মারমুখী মিছিল সবই দেখছে একই জায়গায় মেখলীগঞ্জবাসীর। পাশাপাশি শাসক দলের নেতৃত্ব বদল এবং তার পরবর্তী বিরোধী দলের প্রভাব বিস্তারের চেষ্টা, সবটাই এবার মেখলীগঞ্জের  এবারের পঞ্চায়েত ভোটের রাজনৈতিক বিশিষ্ট। হাইকোর্টে ভোটের রাজনীতি যাই থাক মেখলীগঞ্জ কিন্তু টিভির পর্দায় না তাকিয়েই সরগরম। ফ্লেক্সের পাশাপাশি ভোটের জন্যে দেওয়াল লিখনে এগিয়ে শাসক দল। তৃণমূল কংগ্রেস এর ব্লক কনভেনর শ্রী উদয় রায় জানান “আসন্ন পঞ্চায়েত ভোটে সবকটি আসনে আমরাই বিপুল ভোটে জয়ী হবো”। তিনি জানান “উন্নয়নে বর্তমান রাজ্য সরকার শীর্ষে আছে, গরীব, শ্রমিক, চাষী সর্বত্রই মা মাটি সরকার উন্নয়ন পৌঁছে দিয়েছে, মানুষ সেটা বুজেছে, হলদিবাড়ি সহ জলপাইগুড়ি এবং কুচবিহারের মাঝে তিস্তা নদীর উপর জয়ী সেতুর কাজ চলছে। গ্রামেগঞ্জে পঞ্চায়েত প্রধান তাদের ভালো কাজের শিরোপা পাচ্ছে,তাই গোটা উন্নয়ন প্রক্রিয়া মানুষ বুঝতে পেরেছে তাই মানুষ তৃনমূলের সাথে আছে”৷ অন্যদিকে, শাসক দলের অন্যতম আর এক নেতা শ্রী লক্ষীকান্ত সরকার সাংবাদিকদের জানান “এবারের ভোটের লড়াইয়ে মেখলীগঞ্জে মানুষ জোড়াফুল দিয়ে সাজিয়ে তুলবে। প্রত্যেকটি আসনই আমরাই জয়ী হবো”৷ অপর দিকে, বিজেপি নেতৃত্বের হয়ে মেখলীগঞ্জ বিজেপির যুগ্ম সভাপতি শ্রী বিশ্বনাথ শিলের বক্তব্য “মেখলিগঞ্জের মানুষ তৃণমূল ত্যাগ করে বিজেপির সঙ্গে যুক্ত হচ্ছে। অব্যাহত রয়েছে যোগদান প্রক্রিয়া, তাই আমরা এবারের পঞ্চায়েত ভোটে ঠিক কতটা এগিয়ে আসবো সেটা সময়েই বলবে”।

ছবিঃ স্বপন রায় বীর (টি.এন.আই)

Facebook Comments
Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!