একটি তাজা বোমা উদ্ধারকে কেন্দ্র করে উত্তাল ফালাকাটা

অরুনাংশু মৈত্র (টী.এন.আই ফালাকাটা) । টি.এন.আই সম্পাদনা শিলিগুড়ি

বাংলাডেস্ক, টী.এন.আই ফালাকাটা, ০৪ই ডিসেম্বর ২০১৭: বোমা আতঙ্কে চাঞ্চল্য ছাড়ল ফালাকাটায়। ভর দুপুরে প্রকাশ্য দিবালোকে জনসমক্ষে দেশি হাত বোমা উদ্ধার হল ফালাকাটায়। সোমবার দুপুর একটা নাগাদ ফালাকাটা ২নং গ্রাম পঞ্চায়েত অফিসের সামনে দেশি হাতবোমা পাওয়া গেলো। বোমটি অফিস ঘরের ঠিক সামনেই পাওয়া গেছে। এদিন গ্রাম পঞ্চায়েত কর্মীরা অফিসে ডুকতেই বোমাটি দেখতে পান। সাথে সাথে তারা পুলিশকে খবর দেন। ফালাকাটা ২নং গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান ভানু অধিকারী বলেন দুপুর ১২ টার দিকে অফিসের এক কর্মী প্রকৃতির ডাকে সারা দিতে বাইরে যান, সেসময় দেখেন অফিস ঘরের সামনে ফ্লেগ উত্তোলনের বেদীর পাশে পরে আছে বোমা। সেটি দেখে আমকে জানায়। এরপর পুলিশকে খবর দেই। পুলিশ এসে আমাদের সকল কে বাইরে বের করে দিয়ে বিষয়টি তদন্ত করেন। পরে একটি প্লাস্টিকের বালতিতে জল ভরে তার মধ্যে ই বোমা টিকে ভরে নিয়ে যায়। তবে এখানে কি উদ্যেশ্য এরকম ঘটনা ঘটাল কে ঘটাল কিছুই বোঝা যাচ্ছে না। আমরা সকলেই আতঙ্কের মধ্যে আছি। ফালাকাটা থানার পুলিশ গিয়ে বোমাটি উদ্ধার করে নিয়ে আসে। থানার আইসি বিণোদ গজমের জানান, ১টি দেশি হাতবোমা উদ্ধার করা হয়েছে। প্রাথমিক ভাবে মনেহছে এলাকায় ভয়ের বাতাবরণ সৃষ্টি করতেই কেউ বা কারা বোমাটি সেখানে রেখেছিলো। ঘটনার তদন্ত করে দেখা হচ্ছে বোম স্কোয়ার্ডকে খবর দেওয়া হয়েছে। কি ধরনের বা কতটা শক্তিশালি তা পরীক্ষা না করে বলা যাবে না। বিকল চারটা নাগাদ আলিপুরদুয়ার থেকে বোম স্কোয়ার্ড এসে পৌঁছয় ফালাকাটা থানায়। এর পর সন্ধা পাঁচ টা নাগাদ এই বোমা ও সঙ্গে আর তিনটি বোমা নিয়ে যায় ফালাকাটার বড়োডোবা গ্রামের মুজনাই নদীর ধরে নির্জন এলকায় সেখানে চারটি সন্দেহ ভাজন বোমাগুলিকে একত্রিত করে প্রথমে মুজনাই নদীর পারে গর্ত করে তার ভেতর রেখে বোম স্কোয়ার্ডএর অভিজ্ঞ অফিসার সেগুলোকে নিষ্ক্রিয় করে দেয়। ওনারা বলেন এগুলো সত্যই বোমা কিনা সেটা পরীক্ষা করতে হলে জেলার বাইরে পাঠাতে হবে। তাতে বিপদ বাড়তে পারে। ফালাকাটা থানা ও পঞ্চায়েত অফিস এবং জনগণ এটাকে বোমা বলে সন্দেহ করেছে। আমরা কোন প্রকার রিক্স নিতে পারছিনা তাই এই বোমা গুলিকে নিষ্ক্রিয় করে দিচ্ছি।

ছবিঃ অরুনাংশু মৈত্র (টী.এন.আই), ইন্সেটঃ উদ্ধার তাজা বোমা

Facebook Comments
Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!